মে ২০১৫
সোম মঙ্গল বুধ বৃহঃ শুক্র শনি রবি
    জুন »
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Free counters!

ক্লিনিং কিট

camera

বাজারে নানা ধরেণের ক্লিনিং কিট পাওয়া যায়। দাম মোটামুটি ৫০০ টাকা থেকে শুরু। ইচ্ছে করলে আপনি প্রতিটি আইটেম আলাদা ভাবেও ক্রয় করতে পারেন। যেন এয়ার ব্লোয়ার, ক্লিনিং ক্লথ, লেন্স ক্লিনিং পেপার ইত্যাদি। আপনার ক্যামেরা এবং লেন্স ক্লিন করার জন্য আপনার যা যা প্রয়োজন …

১. এয়ার ব্লোয়ার : এই এয়ার ব্লোয়ার দিয়ে আপনি ক্যামেরা এবং লেন্সের উপরের আলগা ধূলা পরিস্কার করতে পারবেন। সেই সাথে সেন্সরের ধূলাও এটি দিয়ে পরিস্কার করা যাবে। ২. ব্রাশ : ব্রাশ দিয়ে ক্যামেরা এবং লেন্সের উপরের ধূলা আলতো করে ঝেড়ে ফেলতে হয়। ৩.

বিস্তারিত …

কি ভাবে করবেন – সেন্সর পরিস্কার

camera

কথায় বলে বউ মরলে আরেকটা বউ পাওয়া যায়, কিন্তু ভাই মরলে আরেকটা ভাই কিভাবে পাবেন। কথাটা শুনে ঘাবড়ানোর কিছু নেই। তবে আপনাকে যদি প্রশ্ন করা হয় ডিএসএলআর ক্যামেরার সবচাইতে মূল্যবান যন্ত্রাংশ কোনটি তাহলে কি বলবেন – লেন্স নাকি সেন্সর ? লেন্স নষ্ট হলে আপনি আরেকটা লেন্স কিনে আনতে পারেন, কিন্তু সেন্সর নষ্ট হলে কিন্তু আপনার ক্যামেরাটাই বাতিল। এহেন একটা যন্ত্রাংশ যা কিনা বেশ সংবেদনশীল, তার যত্ন নেয়াটা অবশ্যই গুরুত্বের দাবী করে। যত্ন বলতে এতে যেন অবাঞ্চিত ধূলো ময়লা জমতে না পারে সেদিকে একটু খেয়াল রাখা।

বিস্তারিত …

আর্দ্রতা থেকে ক্যামেরা / লেন্স সুরক্ষা

camera

আমাদের দেশে ক্যামেরা এবং লেন্সের বড় শত্রু বাতাসের আর্দ্রতা এবং ধূলোবালি। শীতকালে ধূলোবালি বেশী থাকে আর বর্ষাকালে আর্দ্রতা। ধূলোবালি থেকে ক্যামেরা এবং আনুসঙ্গিক যন্ত্রপাতি রক্ষা করা এবং পরিস্কার করা অপেক্ষাকৃত সহজ হলেও বর্ষাকালে অতিরিক্ত আর্দ্রতা থেকে ক্যামেরা এবং লেন্স রক্ষা করতে হলে একটু বেশী যত্ন নিতে হয়। ধূলোবালি চোখে দেখা গেলেও জলীয় বাস্প কিন্তু আপনি চোখে দেখছেন না। ফলে আর্দ্রতার প্রভাবে লেন্সে শেষ পর্যন্ত ফাঙ্গাস পড়লে আপনি টের পাবেন কি ক্ষতিটা আসলে হয়েছে।

যেসব দোকানে বৈজ্ঞানিক যন্ত্রপাতি বিক্রি করে, সেখানে ডেসিকেটর (বা ডেসিকেটিং বক্স) বলে

বিস্তারিত …

ক্যামেরা শেক আর ঝাপসা ছবি

camera

বন্ধুদের সাথে হয়তো বেড়াতে গেছেন অথবা গেছেন পারিবারিক কোন অনুষ্ঠানে। ছবি তুলেছেন বিস্তর। ক্যামেরার পিছনের ছোট্ট মনিটরে ভালই লাগছিলো ছবিগুলো দেখতে আর দেখাতে। গোল বাঁধলো বাসায় এসে কম্পিউটার মনিটরে দেখার সময়। কেমন যেন ঝাপসা দেখাচ্ছে সব ছবিগুলো। পাঠক, এরকম অভিজ্ঞতা আমার আপনার সবারই হয়েছে ছবি তুলতে যেয়ে। এটা হয় সাধারণত আমাদের হাত কাঁপার কারণে। যদিও ক্যামেরা প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানগুলির এন্টি শেক প্রযুক্তি দিনে দিনে উন্নতি করছে, তবুও ক্যামেরা শেক এর কারণে ছবি ব্লার হয়ে যাওয়া কিন্তু একেবারে বন্ধ হচ্ছেনা। তবে একটু চেষ্টা করলে আমরা নিজেরাই কিন্তু এরকম

বিস্তারিত …

সেল্ফ পোর্ট্রেট

camera

অনেক সময়ই নিজের ছবি নিজেকেই তুলতে হয়। হয়তো আশে-পাশে ভাই-বোন-বন্ধু তেমন কেউ ই নেই যে আপনাকে একটু সাহায্য করতে পারে। একেবারে নির্বান্ধব অবস্থায় নিজের ছবি তোলাটা এমন কঠিন কিছু না। এর জন্য আপনার দরকার হবে একটা ট্রাইপড, একটা ষ্ট্যান্ড, একটা ফোকাস টার্গেট – ব্যস এই কয়টা জিনিস হলেই আপনি আপনার নিজের পোর্টেট ছবি নিজেই তুলে ফেলতে পারবেন। ‘ফোকাস টার্গেট’ জিনিসটা শুনতে ভারিক্কি লাগলেও জিনিসটা একটা ইমেজ। প্রথমে এরকম একটা ফোকাস টার্গেট প্রিন্ট করে নিন। এই পোষ্টের সাথে যে ইমেজটা দেয়া হলো সেটাই আপনি A4 পেপারে

বিস্তারিত …

স্বল্পালোকে বন্যপ্রাণী’র ছবি তোলা

camera

সৌম্য কয়েকদিন আগে জানতে চেয়েছিলো সন্ধ্যার ঠিক আগে পাখির ছবি কিভাবে তুলবে। তার সব ছবিই নাকি ব্লার হয়ে যায়। আমার এবিষয়ে অভিজ্ঞতা একেবারেই নাই বললেই চলে। আমি উত্তর দিয়েছিলাম কমন সেন্স থেকে। আজ হঠাৎ করেই এরকম একটা আর্টিকেল পেলাম। এই পোষ্ট সেই আর্টিকেলেরই ভাবানুবাদ

১. আইএসও বাড়িয়ে নিন – তাই বলে একবারেই একেবারে উচুতে তুলবেন না। দরকার হলে 100-200, 200-400 এভাবে বাড়ান আর কয়েকটা টেষ্ট শট নিয়ে দেখুন আপনার ছবিতে গ্রেইন/নয়েজ কেমন আসছে। প্রয়োজন বোধে এলসিডি’তে জুম করে দেখতে পারেন পরিস্থিতি কেমন।

বিস্তারিত …

ফিল্টার কথন

camera

একটা সময় ছিলো যখন ফটোগ্রাফাররা নানা ধরণের ফিল্টার সংগ্রহ করতেন আর ছবি তোলার সময় ব্যাগ ভর্তি করে সেসব নিয়ে যেতেন। আমি ফিল্ম ক্যামেরার কথা বলছি। এখনও যারা এই ক্যামেরা ব্যবহার করছেন তাদের অবশ্যই নানা ধরণের ফিল্টার রাখতে হয় – কালার কারেকশন ফিল্টার, সেপিয়া বা ব্ল্যাক এন্ড হোয়াইট ফিল্টার, ওয়ারমিং এবং কুলিং ফিল্টার – এরকম নানা ফিল্টার। ডিএসএলআর এর যুগে ফিল্টার আর তেমনভাবে দরকার হয় না। ক্যামেরার ফিচার ব্যবহার করেই আপনি এখন ব্ল্যাক এন্ড হোয়াইট বা সেপিয়া কালারের ছবি পেতে পারেন। আর ছবি তোলার পর পোষ্ট

বিস্তারিত …

টয় লেন্স – Holga HL – N

camera

নেটে হঠাৎ ই একদিন হোলগা ক্যামেরার ব্যাপারে জানলাম। জানলাম লোমো’র মতো এটাও বেশ জনপ্রিয় একটা মডেল। অনেকদিন পর কোন একটা ইংরেঝী ব্লগে দেখলাম হোলগা ডিএসএলআর ক্যামেরার জন্য লেন্স তৈরী করে যা দিয়ে সরাসরিই লোমো ইফেক্ট পাওয়া যায় ডিজিটাল ছবিতে। ইন্টারেষ্টিং ব্যাপার। খোজ নিয়ে জানলাম নাইকন ক্যামেরার জন্য তৈরী তাদের বেসিক লেন্স হলো Holga HL-N, এর সামনে লাগানোর জন্য ফিশআই, ওয়াইড এঙ্গেল, ক্লোজআপ সহ আরো নানা এটাচমেন্ট পাওয়া যায়। বেসিক লেন্সর দাম ২৫ ডলার, তবে এটাচমেন্ট বা একসেসরিজগুলি আলাদা কিনতে হবে। আমি আপাতত একটা বেসিক লেন্স

বিস্তারিত …

বিকল্প রিমোট শাটার রিলিজ (নাইকন) : ট্রিকস

camera

আমার নাইকন ডি৩০০০ এর রিমোট শাটার রিলিজ এলএম – এল৩ এর দাম ঢাকায় ১৫০০-১৮০০ টাকা। আমেরিকার ষ্টোর গুলিতে দাম পেলাম ১৮ ডলার। একমাত্র ইবে তে দাম ৫ ডলারের মতো। রিমোট শাটার রিলিজের জন্য ১৫০০-১৮০০ টাকা খরচ করবো কিনা চিন্তা করছিলাম। এমন সময় একটা সাইট আর একটা ইবুকে পেলাম যে টিভির রিমোট কনট্রোল দিয়ে এটা করা সম্ভব। তবে রিমোট হতে হবে প্রোগ্রামেবল বা ইউনিভার্সাল। এক বন্ধুকে জিজ্ঞাসা করলাম এই রিমোট সম্পর্কে, ও বললো ষ্টেডিয়াম মার্কেটে পেতে পারি। দাম ৩০০-৪০০ টাকার মতো। আজ ষ্টেডিয়ামে গিয়ে খোজ করলাম। প্রোগ্রামেবল

বিস্তারিত …

বেসিক ফটোগ্রাফী কোর্স : খসড়া ১

camera

বেসিক ফটোগ্রাফী কোর্স মোট ৯টি ভাগে ভাগ করা হয়েছে। প্রতিটি ভাগেই সে বিষয় নিয়ে আলোচনা থাকবে, থাকবে উদাহরণ। আসুন দেখে নেয়া যাক কি আছে এই কোর্স এ

সেকশন ১ : ক্যামেরা সেকশন ২ : ক্যামেরা সেন্সর সেকশন ৩ : ক্যামেরা লেন্স সেকশন ৪ : এক্সপোজার সেকশন ৫ : ফোকাস সেকশন ৬ : লাইট সেকশন ৭ : গ্যাজেটস সেকশন ৮ : পোষ্ট প্রসেসিং সেকশন ৯ : কম্পোজিশন

একজন ভাল মানের ফটোগ্রাফার হতে চাইলে আপনাকে যা করতে হবে

১. ফটোগ্রাফীর

বিস্তারিত …